জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণে বেশি বেশি সেক্স : গবেষণা রিপোর্ট

নতুন এক গবেষণায় বলা হয়, যে দম্পতিরা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন, তারা অন্যদের অপেক্ষা অনেক বেশি  সেক্স করেন।

আমেরিকার জন হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথ-এর এক দল গবেষক তাদের গবেষণায় এ তথ্য প্রকাশ করেন। বলেন, বিয়ের পর যে নারীরা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেন তারা অন্য নারীদের চেয়ে তিন গুন বেশি সেক্স করেন।

গবেষকরা আরো জানান, জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গর্ভধারণের দায়িত্ব থেকে মুক্তি দেয়। একই সঙ্গে যৌনতা উপভোগের বিষয়টি সম্পূর্ণ আলাদা করে দেয়। এ ক্ষেত্রে দম্পতি অনেক বেশি তৃপ্তি বোধ করেন।

২০০৫ সাল থেকে সংগৃহীত নানা তথ্য বিশ্লেষণ করেছেন গবেষকরা। দুই লাখ ১০ হাজার নারী সেই সময় থেকে যৌন সংক্রান্ত নানা প্রশ্নের জবাব দেন। তারা তখন থেকেই বিবাহিত। পৃথিবীর ৪৭টি দেশের নারীদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

তাদের নানা প্রশ্ন করা হয়। তারা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন কিনা অথবা বিগত ৪ সপ্তাহে কতবার সেক্স করেছেন ইত্যাদি প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তারা। এদের মধ্যে যারা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন তাদের ৯০ শতাংশ অন্যদের তুলনায় বেশি বেশি সেক্স করেছেন।

গবেষণায় আরো বলা হয়, ২০-২৯ বছর বয়সী নারীদের মধ্যমে যারা আগামী দুই বছরের মধ্যে সন্তান নিতে চান, তারাও যৌনকর্মে নিয়মিত থাকেন।

ব্লুমবার্গ স্কুলের গবেষক সুজানে বেল জানান, নারীরা যেন  স্বাস্থ্যকর, নিরাপদ এবং উপভোগ্য যৌনজীবন পায় তা নিশ্চিত করতেই এই গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। যৌনতাকে গর্ভধারণের ভয় থেকে আলাদা করতে পারলে তা আরো নিরাপদ ও উপভোগ্য হয়ে ওঠে। এ কারণেই জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি বেশি সেক্স করতে উদ্বুদ্ধ করে।

আবার জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতির কারণে বেশি সেক্স হওয়ার অর্থ এই নয় যে, বেশি বেশি পিল খেলে আরো বেশি সেক্স করা সম্ভব। নারীরা বহু কারণে জন্মবিরতিকরণ পিল বা অন্য পদ্ধতি গ্রহণ করেন না। সহজলভ্যতা, স্বাস্থ্যগত কারণ এবং অজানা আশঙ্কা এ ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখে। আবার অনিয়মিত যৌনকর্মের কারণেও অনেকে এ পদ্ধতি গ্রহণ করতে আগ্রহী থাকেন না। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

নতুন এক গবেষণায় বলা হয়, যে দম্পতিরা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন, তারা অন্যদের অপেক্ষা অনেক বেশি  সেক্স করেন।

আমেরিকার জন হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অব পাবলিক হেলথ-এর এক দল গবেষক তাদের গবেষণায় এ তথ্য প্রকাশ করেন। বলেন, বিয়ের পর যে নারীরা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেন তারা অন্য নারীদের চেয়ে তিন গুন বেশি সেক্স করেন।

গবেষকরা আরো জানান, জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গর্ভধারণের দায়িত্ব থেকে মুক্তি দেয়। একই সঙ্গে যৌনতা উপভোগের বিষয়টি সম্পূর্ণ আলাদা করে দেয়। এ ক্ষেত্রে দম্পতি অনেক বেশি তৃপ্তি বোধ করেন।

২০০৫ সাল থেকে সংগৃহীত নানা তথ্য বিশ্লেষণ করেছেন গবেষকরা। দুই লাখ ১০ হাজার নারী সেই সময় থেকে যৌন সংক্রান্ত নানা প্রশ্নের জবাব দেন। তারা তখন থেকেই বিবাহিত। পৃথিবীর ৪৭টি দেশের নারীদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়।

তাদের নানা প্রশ্ন করা হয়। তারা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন কিনা অথবা বিগত ৪ সপ্তাহে কতবার সেক্স করেছেন ইত্যাদি প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন তারা। এদের মধ্যে যারা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেছেন তাদের ৯০ শতাংশ অন্যদের তুলনায় বেশি বেশি সেক্স করেছেন।

গবেষণায় আরো বলা হয়, ২০-২৯ বছর বয়সী নারীদের মধ্যমে যারা আগামী দুই বছরের মধ্যে সন্তান নিতে চান, তারাও যৌনকর্মে নিয়মিত থাকেন।

ব্লুমবার্গ স্কুলের গবেষক সুজানে বেল জানান, নারীরা যেন  স্বাস্থ্যকর, নিরাপদ এবং উপভোগ্য যৌনজীবন পায় তা নিশ্চিত করতেই এই গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। যৌনতাকে গর্ভধারণের ভয় থেকে আলাদা করতে পারলে তা আরো নিরাপদ ও উপভোগ্য হয়ে ওঠে। এ কারণেই জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি বেশি সেক্স করতে উদ্বুদ্ধ করে।

আবার জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতির কারণে বেশি সেক্স হওয়ার অর্থ এই নয় যে, বেশি বেশি পিল খেলে আরো বেশি সেক্স করা সম্ভব। নারীরা বহু কারণে জন্মবিরতিকরণ পিল বা অন্য পদ্ধতি গ্রহণ করেন না। সহজলভ্যতা, স্বাস্থ্যগত কারণ এবং অজানা আশঙ্কা এ ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখে। আবার অনিয়মিত যৌনকর্মের কারণেও অনেকে এ পদ্ধতি গ্রহণ করতে আগ্রহী থাকেন না। সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

- See more at: http://www.kalerkantho.com/online/lifestyle/2016/01/27/318008#sthash.zbPrHEr0.dpuf