মেক-আপ ঢেকে দিবে ব্রণ!

Highlighting and shading area showing to contour corrective face shape. facial contouring

ব্রণ মানেনা শীত – গ্রীস্ম, যখন তখন ত্বকের নিচ থেকে উঁকি দিয়ে ভেসে উঠে ত্বকের উপরে। কিন্তু ব্রণ হয়েছে বলে আপনি কোনো অনুষ্ঠানাদিতে অংশগ্রহণ করবেন না বা আপনার মুখে ব্রণ দেখা দিয়েছে তাই আপনি মেক-আপ করবেন না কোনো আত্মীয়ের বিয়েতে তা কি করে হয়? ত্বক যেমনই হোক না কেন, মেক-আপ টিপস থাক হাতের মুঠোয়। 

আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করছি মেক-আপ দিয়ে কীভাবে ব্রণ ঢাকবেন তার সহজ উপায় :

– মেক-আপ শুরু করার আগে মুখ ভাল করে পরিষ্কার করে নিন।

-সাধারণত তৈলাক্ত ত্বকে বেশি দেখা দেয়। তাই মুখ পরিষ্কার করার পর আপনি জেল কিংবা ওয়াটার বেস ময়শ্চারাইজ়ার লাগিয়ে নিন।

-আঙুলের ডগায় প্রাইমার নিয়ে সারা মুখে ভাল করে ব্লেন্ড করুন যাতে বাকি মেক-আপ ভাল ভাবে বসে এবং স্মুদ এফেক্ট আসে।

-এবার মুখের দাগ ছোপ, পোরস ঢেকে ফেলার জন্য কনসিলার ব্যাবহার করুন। যেখানে যেখানে দাগ, ছোপ বেশি রয়েছে সেই জায়গাগুলোতে কনসিলার লাগান। এবার আস্তে আস্তে ব্লেন্ড করে দিন। ব্লেন্ড করার সময় একটু সময় নিয়ে যত্ন করে করুন। আঙুল দিয়ে কনসিলার ঘষবেন না। এতে ত্বকের সেনসিটিভ অংশে আরও ক্ষতি হতে পারে।

pimples makeup3 (2)

-চোখের নীচে কনসিলার লাগান। যদি আপনার ডার্ক সার্কল থাকে তাহলে একটু বেশি করে কনসিলার লাগিয়ে ব্লেন্ড করুন যাতে পুরো মুখের স্কিন টোন সমান হয়। এবার একটা টিস্যু পেপার নিয়ে সারা মুখে আস্তে আস্তে চেপে দিন। এতে বাড়তি মেক-আপ টিস্যু শুষে নেবে। চেষ্টা করুন মেক-আপ যতটা সম্ভব ন্যাচারাল রাখতে।

-এরপর লিক্যুইড ফাউন্ডেশন নিয়ে স্ট্রিপলিং ব্রাশ দিয়ে সারা মুখে লাগিয়ে নিন। ব্রাশের স্ট্রোক একদিকেই টানবেন। এতে আগে থেকে লাগানো কনসিলার উঠে আসবে না। এরপর কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন যাতে মেক-আপ স্কিনে বসে এবং ভালভাবে মিশে যায়।

-এবার কমপ্যাক্ট বা ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার সারা মুখে লাগিয়ে নিন। এতে স্কিনে একটা স্মুদ এফেক্ট আসবে। মেক-আপ অনেকক্ষণ ভাল রাখার জন্য সবশেষে ফিনিশিং স্প্রে লাগিয়ে ফেলুন।

-মুখের মেক-আপের টিপস তো পেয়ে গেলেন। এবার আপনার ড্রেসের সঙ্গে মানাসই লাইনার, আই শ্যাডো লাগিয়ে নিন।

-চোখের মেক-আপ ব্রাইট করলে ঠোঁটে হালকা গ্লসি লিপস্টিক লাগান। ঠোঁটকে হাইলাইট করলে চোখে ট্রান্সপারেন্ট মাসকারা পরতে পারেন।

 

সুত্রঃ প্রতিক্ষণ/এডি/তাজিন