পাঁচ বদভ্যাসে হতে পারে স্বপ্নভঙ্গ

2016-02-03 by  

১. গড়িমসি করা
জীবনে কী হতে চান? শিল্পী, নাকি খেলোয়াড়? অনেকে এ সিদ্ধান্ত নিতে বছরের পর বছর পার করেন। আবার বেছে নিলেও করণীয় নির্ধারণে গড়িমসি করেন। কিন্তু এ ধরনের স্বভাব থাকলে আপনি কোনো দিনই সফল হতে পারবেন না। বিশেষজ্ঞদের মতে, গন্তব্যের দিকে চোখ মেলে না তাকানো খুবই মারাত্মক।
২. দোষ চাপানো
আপনার ব্যবসা ভালো যাচ্ছে না। এটা কর্মীদের দোষ, তা নিশ্চিত নয়। কিন্তু আপনি বরাবরই তাদের দোষ খুঁজে বেড়ান। এমন স্বভাব থাকলে আপনি কখনোই প্রতিষ্ঠিত হতে পারবেন না। ব্যর্থতার দায় নিজের কাঁধেও নিতে হবে। অন্যের কাঁধে দোষ চাপানো বড় রকমের বদভ্যাস।
৩. পরচর্চা
উর্বর মস্তিষ্ক নতুন নতুন ধারণা নিয়ে আলোচনা করে। গড়সংখ্যক মস্তিষ্ক চলমান ঘটনা নিয়ে কথা বলতেই ব্যস্ত থাকে। আর সংকীর্ণ মানসিকতা অন্য মানুষকে নিয়ে সমালোচনায় মুখর থাকে। কাজেই অন্যের ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে প্রাণশক্তি খরচ করবেন না। বরং নিজের জীবনের খুঁটিনাটি বিশ্লেষণের চেষ্টা করুন।
৪. অজুহাত তৈরি করা
জীবনের সবচেয়ে কঠিন কাজের একটি হলো, ব্যর্থতা মেনে নেওয়া। সফলরা অকপটে এই কাজটি করে থাকেন। কারণ ব্যর্থতার মাঝেই বাস্তব শিক্ষা মেলে। আর সেই শিক্ষাই ভবিষ্যৎ সম্পর্কে মানুষকে দূরদর্শী করে তোলে। যারা ব্যর্থতা মানতে নারাজ, তারা অজুহাত সৃষ্টিতে ওস্তাদ।
৫. নেতিবাচক আচরণ ফুটিয়ে তোলা
আপনার আসল পরিচয়টা এমনিতেই নানাভাবে ফুটে উঠবে। বদভ্যাসের অনিয়ন্ত্রিত প্রকাশ মানুষের মনে কেবল বাজে ধারণাই সৃষ্টি করবে। কাজেই নিজের সম্পর্কে কিছু বলা বা প্রকাশের ক্ষেত্রে সাবধান হয়ে যান। নইলে সুনাম ক্ষুণ্ন হবে। আর এর প্রভাব পড়বে আপনার ভবিষ্যতে।