চরম বিরক্তিকর মানুষের ১০ বৈশিষ্ট্য

2016-02-04 by  

নতুন কারো সঙ্গে পরিচিত হলেন বা সুপরিচিত মানুষটির সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন। কেন যেন তাকে চরম বিরক্ত লাগছে আপনার। এভাবে কারো কাছে বিরক্তিকর বলে বিবেচিত হতে পারেন। ২০১৪ সালে ইউনিভার্সিটি অব ভার্জিনিয়ার এক মনোবিজ্ঞানের গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের চিন্তা থেকে বিচ্ছিন্ন করার জন্যে সহনীয় পর্যায়ের ইলেকট্রিক শক দেওয়া হয়। একই ধরনের বিষয়ে 'কুয়োরা'তে প্রশ্ন রাখা হয়, চরম বিরক্তিকর মানুষের বৈশিষ্ট্য কি কি হতে পারে। এখানে বোদ্ধারা এ ধরনের মানুষের অভ্যাস সম্পর্কে ধারণা দিয়েছেন।

১. আলাপচারিতায় তারাই চরম বিরক্তিকর যারা ভারসাম্যহীন কথা বলেন। কথা বলা ও অন্যের কথা শোনার ক্ষেত্রে তারা ছন্দ মেলাতে পারেন না।

২. একটি আলাপচারিতায় বিরক্তিকর মানুষরা বলতে পারবেন না যে, আলোচনায় আর কেউ অংশ নিয়েছেন কিনা। এ ক্ষেত্রে অন্য মানুষের অঙ্গভঙ্গির দিকে দৃষ্টিপাত করতে হবে।

৩. বিরক্তিকর ব্যক্তিত্বের মানুষরা কখনো অন্যেকে হাসাতে পারেন না। কোনো বিষয়ে নানা দিক থেকে চিন্তা-ভাবনার ভিন্নতা বিষয়টি সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দেয়। এভাবে একটি সাধারণ বিষয়ের মাঝেও মজার কিছু খুঁজে পাওয়া যায়।

৪. একই কাজ বার বার করতে থাকেন এ ধরনের মানুষরা। নানা কাজের নানা পন্থা খুঁজে বের করার মাধ্যমে বিচিত্র  অভিজ্ঞতা অর্জিত হতে পারে। একই কাজ করতে নিজেদেরও বিরক্ত লাগে। আর তা দেখা অন্যের চোখেও বিরক্তিকর।

৫. বন্ধু বা কয়েকজন মানুষের আলাপচারিতার মাঝে একজন চরম বিরক্তিকর মানুষের কখনোই কিছুই বলার থাকে না। এ পরিচয় থেকে বেরিয়ে আসতে হলে আত্মকেন্দ্রিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

৬. বিশ্বাস এবং মতামত থেকে বিরক্তিকর মানুষদের কখনোই কিছু বলার থাকে না। কোনো বিষয় নিজস্ব চিন্তাধারা না থাকাটা সবার চোখে বিরক্তিকর বিষয়।

৭. চরম বিরক্তিকর মানুষরা জানেন না একটি গল্প কিভাবে বলতে হয়। আর একে আকর্ষণীয় করতে হলে যা বলছেন তার প্রতি আগ্রহ থাকতে হবে।

৮. অন্যের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে বিরক্তিকর মানুষরা কোনো বিষয় দেখতে পারেন না। আবেগপ্রসূত বুদ্ধিমত্তা থেকে এ বিষয়গুলো বেরিয়ে আসে।

৯. কোনো বিষয়ে বা বক্তব্যে নতুন কিছু যোগ করতে পারেন না বিরক্তিকর মানুষরা। আমাদের মস্তিষ্ক সৃষ্টিশীলতার চর্চা করতে চায়। এর জন্যে নতুন নতুন তথ্য খোঁজার আগ্রহ জাগে মস্তিষ্কে।

১০. আলাপচারিতায় বিরক্তিকর মানুষরা অন্য কাউকে নিমন্ত্রণ করতে পারেন না। কাউকে নিজেদের মধ্যে আহ্বান জানাতে অভ্যস্ত নন তারা।

 

সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

নতুন কারো সঙ্গে পরিচিত হলেন বা সুপরিচিত মানুষটির সঙ্গেই সময় কাটাচ্ছেন। কেন যেন তাকে চরম বিরক্ত লাগছে আপনার। এভাবে কারো কাছে বিরক্তিকর বলে বিবেচিত হতে পারেন। ২০১৪ সালে ইউনিভার্সিটি অব ভার্জিনিয়ার এক মনোবিজ্ঞানের গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের চিন্তা থেকে বিচ্ছিন্ন করার জন্যে সহনীয় পর্যায়ের ইলেকট্রিক শক দেওয়া হয়। একই ধরনের বিষয়ে 'কুয়োরা'তে প্রশ্ন রাখা হয়, চরম বিরক্তিকর মানুষের বৈশিষ্ট্য কি কি হতে পারে। এখানে বোদ্ধারা এ ধরনের মানুষের অভ্যাস সম্পর্কে ধারণা দিয়েছেন।

১. আলাপচারিতায় তারাই চরম বিরক্তিকর যারা ভারসাম্যহীন কথা বলেন। কথা বলা ও অন্যের কথা শোনার ক্ষেত্রে তারা ছন্দ মেলাতে পারেন না।

২. একটি আলাপচারিতায় বিরক্তিকর মানুষরা বলতে পারবেন না যে, আলোচনায় আর কেউ অংশ নিয়েছেন কিনা। এ ক্ষেত্রে অন্য মানুষের অঙ্গভঙ্গির দিকে দৃষ্টিপাত করতে হবে।

৩. বিরক্তিকর ব্যক্তিত্বের মানুষরা কখনো অন্যেকে হাসাতে পারেন না। কোনো বিষয়ে নানা দিক থেকে চিন্তা-ভাবনার ভিন্নতা বিষয়টি সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দেয়। এভাবে একটি সাধারণ বিষয়ের মাঝেও মজার কিছু খুঁজে পাওয়া যায়।

৪. একই কাজ বার বার করতে থাকেন এ ধরনের মানুষরা। নানা কাজের নানা পন্থা খুঁজে বের করার মাধ্যমে বিচিত্র  অভিজ্ঞতা অর্জিত হতে পারে। একই কাজ করতে নিজেদেরও বিরক্ত লাগে। আর তা দেখা অন্যের চোখেও বিরক্তিকর।

৫. বন্ধু বা কয়েকজন মানুষের আলাপচারিতার মাঝে একজন চরম বিরক্তিকর মানুষের কখনোই কিছুই বলার থাকে না। এ পরিচয় থেকে বেরিয়ে আসতে হলে আত্মকেন্দ্রিকতা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

৬. বিশ্বাস এবং মতামত থেকে বিরক্তিকর মানুষদের কখনোই কিছু বলার থাকে না। কোনো বিষয় নিজস্ব চিন্তাধারা না থাকাটা সবার চোখে বিরক্তিকর বিষয়।

৭. চরম বিরক্তিকর মানুষরা জানেন না একটি গল্প কিভাবে বলতে হয়। আর একে আকর্ষণীয় করতে হলে যা বলছেন তার প্রতি আগ্রহ থাকতে হবে।

৮. অন্যের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে বিরক্তিকর মানুষরা কোনো বিষয় দেখতে পারেন না। আবেগপ্রসূত বুদ্ধিমত্তা থেকে এ বিষয়গুলো বেরিয়ে আসে।

৯. কোনো বিষয়ে বা বক্তব্যে নতুন কিছু যোগ করতে পারেন না বিরক্তিকর মানুষরা। আমাদের মস্তিষ্ক সৃষ্টিশীলতার চর্চা করতে চায়। এর জন্যে নতুন নতুন তথ্য খোঁজার আগ্রহ জাগে মস্তিষ্কে।

১০. আলাপচারিতায় বিরক্তিকর মানুষরা অন্য কাউকে নিমন্ত্রণ করতে পারেন না। কাউকে নিজেদের মধ্যে আহ্বান জানাতে অভ্যস্ত নন তারা। সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

- See more at: http://www.kalerkantho.com/online/lifestyle/2016/02/02/320356#sthash.lWS2qbXE.dpuf